কাতারে ফ্যামেলী ভিসার আবেদন কিভাবে করবেন?

আপনি যদি কাতারে রেসিডেন্ট পারমিটধারী হয়ে থাকেন, তাহলে আপনি আপনার পরিবারকে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্য কাতারে নিয়ে আসতে ভিসার আবেদন করতে পারবেন। এই ভিসার নাম “ফ্যামেলী ভিসিট ভিসা”। ভিসার মেয়াদ হবে মাত্র ১মাস। আবেদন মনজুর করা হলে এবং আপনাকে ভিসা প্রদান করা হলে আপনি যে ভিসা পাবেন, তার মেয়াদ ১মাস গননা শুরু হবে কাতারে প্রবেশ করার দিন থেকে এবং ভিসা গ্রহণের সময় আপনার নিকট থেকে যে ফি গ্রহণ করা হবে, তাতে ঐ ১মাসে ভিসা ফি অন্তভূক্ত থাকবে। বিধায় আপনাকে আর কোন ভিসা লাগাতে হবেনা-এয়ারপোর্টের ইমিগ্রেশন ক্রস করার সময় সংশ্লিষ্ট অফিসার আপনাকে ১মাসে ভিসা লাগিয়ে দেবে।

তবে যদি কেউ মনে করেন যে, তিনি তার ফ্যামেলকে ১ মাসে বেশী সময় কাতারে রাখবেন, তাহলে ভিসার মেয়াদ বর্ধিত করণের প্রক্রিয়া হিসাবে মেডিক্যাল ফিটন্যাস সার্টিফিকেট গ্রহণ করতে হবে কাতারের মেডিক্যাল কমিশন থেকে।

আপনার স্ত্রী, সন্তানের জন্য আরো ৫মাস ভিসা বর্ধিত করা যাবে। তবে যদি আপনার বাবা, মা, শশুড়, শশুড়ী, ভাই, বোন, শালা, শালী এই ধরনের কেউ হোন, তাহলে মাত্র ২মাসের ভিসা বর্ধিত করণের সুযোগ পাবেন (এই নিয়মটি বিভিন্ন সময় শিথিলও হয়ে থাকে)। 

ফ্যামেলী ভিসার জন্য যা করতে হবেঃ

প্রথমেই আপনি অনলাইন থেকে একটি আবেদনপত্র ডাউলোড করে তা সঠিক ভাবে পুরণ করে নিতে হবে।

পুরণকৃত আবেদনপত্রে আপনার স্বাক্ষর প্রদান করতে হবে-যে স্বাক্ষরটি আপনার আইডি কার্ডের পিছনে রয়েছে, ঠিক সেই স্বাক্ষরের মতো করে।

আবেদনপত্রের সাথে নিম্নোক্ত ডকুমেন্ট গুলো সংযুক্ত করতে হবে-যদি আপনি আপনার স্ত্রী বা স্বামীর জন্য আবেদন করে থাকেনঃ
ক. আপনার আইডি কার্ডের কপি।
খ.  আপনার বৈধ পাসপোর্ট এ কপি।
গ. আপনার স্পন্সরের অফিসিয়েল প্যাডে লিখিত ও স্বাক্ষর ও সিলমোহর কৃত একটি নো অবজেকশন লেটার-যাতে আপনার প্রফেসন এবং মাসিক সেলারী উল্লেখ থাকতে হবে।
ঘ. আপনার বিবাহের কাবিন নামার সত্যায়িত কপি।
ঙ. মায়ের সাথে বাচ্ছা থাকলে, বাচ্চার পাসপোর্ট কপি এবং সত্যায়িত জন্ম নিবন্ধন কপি।
(সত্যায়িত কপি বলতে বাংলাদেশে পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয় কর্তৃক সত্যায়নের পর কাতারে বাংলাদেশ এম্বেসী সত্যায়ন করবে। এর পর কাতারের পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয় কর্তৃক সত্যায়িত হতে হবে। কাতারের পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের সত্যায়িত করণের কাউন্টার মিসাইমির সার্ভিস সেন্টার এবং ওয়াকরা বলদিয়াতে রয়েছে)

আবেদনপত্রের সাথে নিম্নোক্ত ডকুমেন্ট গুলো সংযুক্ত করতে হবে-যদি আপনি আপনার স্ত্রী বা স্বামীর ছাড়া অন্য কোন আত্মীয়ের জন্য আবেদন করে থাকেনঃ

ক. আপনার আইডি কার্ডের কপি।
খ.  আপনার বৈধ পাসপোর্ট এ কপি।
গ. আপনার স্পন্সরের অফিসিয়েল প্যাডে লিখিত ও স্বাক্ষর ও সিলমোহর কৃত একটি নো অবজেকশন লেটার-যাতে আপনার প্রফেসন এবং মাসিক সেলারী উল্লেখ থাকতে হবে।
ঘ. আপনার স্ত্রী বা স্বামীর বৈধ পাসপোর্ট কপি।
ঙ. আপনার স্ত্রী বা স্বামীর আইডি কার্ডের কপি।
চ. ঘর ভাড়া এগ্রিমেন্টের কপি।
ছ. যার জন্য ভিসার আবেদন করা হচ্ছে, তার সাথে আপনার সম্পর্ক প্রমাণের জন্য প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট।

আবেদন কোথায় করবেনঃ
নিম্নোক্ত যে কোন প্রক্রিয়ায় আবেদন করতে পারেন-
১. গারাফাতে অবস্থিত প্রধান পাসপোর্ট অফিস।
২. যে কোন আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস।
৩. মাতরাশ-২ এর অনলাইন এপ্লিকেশন।

অতিরিক্ত তথ্যঃ
ক. আবেদন আরবীতে করতে হবে।
খ. আবেদনপত্রের নাম ও তারিখ  লেখার স্থান সমূহ পুরণ করতে হবে পাসপোর্টে যে ভাষায় লিখা আছে, সেই ভাষায়।
গ. আবেদন পত্র পুরণ সংক্রান্ত বিষয়ে আবেদন পত্রের উল্টা পৃষ্টায় আরবী ও ইংরেজীতে বিস্তারিত বলা হয়েছে।
ঘ. যার জন্য ভিসার আবেদন করা হলো, তিনি যদি কাতারে ৩০দিনের বেশী অবস্থান করেন এবং তার বয়স ১৮ বছরের বেশী হয় এবং তিনি পুরুষ হোন, তাহলে তিনি কাতার ত্যাগের পূর্বে তার নামে খুরুজ বা এক্সিট পারমিট ইস্যু করতে হবে।

অতএব, আপনি যদি ফ্যামেলী ভিসার জন্য আবেদন করতে চান, তাহলে উপরোক্ত প্রস্তুতি নিয়ে আবেদন শুরু করুন।



No comments

Theme images by luoman. Powered by Blogger.